Breaking News

অক্লান্ত পরিশ্রম করে পিতৃহীন তিন মেয়েকে পড়াশোনা করিয়ে বড় অফিসার বানিয়েছেন মা! আজ তাদের জন্য গর্বিত গোটা গ্রাম! রইল বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন:-দেখুন জীবন একটা খরস্রোতা নদীর উপর বয়ে যাওয়া নৌকা । যেখানে উত্থান-পতন ঢালুপথ সবকিছুই থাকবে। তবুও আপনাকে কিনারার উদ্দেশ্যে এগিয়ে যেতে হবে ।জীবনে সাফল্য পেতে গেলে অনেক ধরনের বাধার সম্মুখীন আপনাকে হতে হবে ।এবং সে বাধা গুলি পেরিয়ে যেতে পারলেই মিলবে আলোর হদিশ । ঘটনা কোন রূপকথা বা গল্প নয় ।

বাস্তবে এর প্রমাণ রয়েছে অনেক । আমাদের আশেপাশে এমন বহু মানুষ রয়েছে যারা টাকা পয়সার অভাবে পড়াশোনা করতে পারেন না । বা খুব কষ্ট করে নিজের পড়াশোনা টা চালায় । পড়াশোনার ইচ্ছেশক্তির জন্যই তারা প্রতিনিয়ত সমস্ত রকম বাধা বিপত্তিকে তোয়াক্কা করে এগিয়ে যাচ্ছে লক্ষ্যপূরণ উদ্দেশ্যে ।ঠিক তেমনি একজন তিন বোনের কথা বলতে চলেছি আজকের এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে ।।

রাজস্থানের ছোট্ট একটি গ্রামে বসবাস করেন মীরা দেবী । তার স্বামীর বহুদিন আগে মারা গিয়েছেন । তার স্বামী শেষ ইচ্ছে ছিল যে তার তিন মেয়ে এবং এক ছেলেকে উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত করতে এবং ভালো অফিসে কর্মরত অবস্থায় দেখতে । কিন্তু সেই ইচ্ছা তিনি দেখে যেতে পারেননি । অবশেষে স্বামীর শেষ ইচ্ছা পূরণ করার জন্য জোর কদমে মাঠে নেমে কাজ করতে শুরু করেন তার স্ত্রী । একসাথে চারজনের পড়াশোনার খরচ বহন করতে থাকেন তিনি । এমনকি শ্রমজীবী হিসেবেও কাজ করেছেন তিনি ।তবে তার বড় ছেলে রাম সিং বাবার ইচ্ছে পূরণ করার জন্য পড়াশোনা মাঝপথে ছেড়ে দেয় এবং মায়ের সাথে সহযোগিতা করতে থাকে।

মীরা দেবী তিন কন্যা কমলা চৌধুরী গীতা চৌধুরী এবং মমতা চৌধুরী । মীরা দেবী বারবার চেয়ে ছিলেন তার এই তিন সন্তানকে উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত করতে । তাহলে তার বাবার স্বপ্ন পূরণ হবে । তার জন্য কঠোর পরিশ্রম করতে শুরু করেন তিনি ।এবং তার পরবর্তী যদিও মায়ের এই ইচ্ছেকে সম্পূর্ণ রকম হয় বাস্তবে রূপায়িত করার চেষ্টা করতে থাকে তার মেয়েরা ।

অর্থাৎ মনোযোগ দিয়ে পড়াশোনা করতে শুরু করেন । এরপর তারা ইউপিএসসি এক্সাম এর জন্য প্রস্তুতি নিতে শুরু করে ।কিন্তু কম নাম্বার থাকার জন্য তাদের নির্বাচন হয়নি ।ভেঙে পড়েনি তারা । রাজস্থানের প্রশাসনিক প্রবেশিকা পরীক্ষায় দুর্দান্ত ফলাফল করে নিযুক্ত হয় তারা এবং বাবার ইচ্ছে পূরণ করে। এর মধ্যে বড় বোন কমলা চৌধুরী ও বিসি তে ৩২ তম এবং গীতা ৬৪ তম এবং তৃতীয় বোন মমতা ১২৮ তম স্থান পেয়েছেন। এই ভাবেই তিন বোন তাদের মা এবং তাদের পরিবারের সবার মুখ উজ্জ্বল করেছেন।।

About kolkata buzz24x7

Check Also

‘আরআরআর’, ‘কেজিএফ’-এর মতো ‘অর্থহীন’ ছবি দেখবেন না, শ্রোতাদের অনুরোধ করলেন জুবিন

নিজস্ব প্রতিবেদন:বর্তমানে বলিউড ইন্ডাস্ট্রি বিভিন্ন চলচ্চিত্রে থেকেও বেশি পরিমাণে মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছে দক্ষিণের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.